প্রিয় স্বাধীনতা ও বিজয়ের আবীরে মাখামাখি

তারিকুল ফেরদৌস
তারিকুল ফেরদৌস 314 Views

১৯৪৭ এ দ্বি- জাতিতত্বের ভিত্তিতে ভারত ও পাকিস্তান আলাদা হয়ে বাঙালি জাতির ভাগ্য পাকিস্তান সরকারের হাতে পড়ে। শুরুতে তারা আমাদের বাংলা ভাষার উপর প্রথম আঘাত হেনে পরাজয় বরণ করে।

১৯৫৪ সনের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ১৯৬৯ এর গণ- অভ্যুত্থান, ১৯৭০ এর সাধারণ নির্বাচনেও তাদের বধোদয় হয়নি যে এ জাতিকে দাবায়ে রাখা যাবে না।হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাত মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। পঁচিশ মার্চের গণহত্যা, দশ এপ্রিল মুজিব নগর সরকার গঠণ, ১৪ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবিদের হত্যা অবশেষে ১৬ ডিসেম্বর রেসকোর্স ময়দানে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে জন্ম লাভ করে লাল সবুজের পতাকা শোভিত বাংলাদেশ।

১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশ গঠণে আত্মনিয়োগ করেন। কিন্তু ১৯৭৫ সনে একদল বিপথগামী সেনা সদস্যদের হাতে তিনি স্বপরিবারে শাহাদাৎ বরণ করেন। সে সময়ে বিদেশে থাকায় বেঁচে যান বর্তমান মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী, দেশরত্ন শেখ হাসিনা। এরশাদ ও জিয়া সরকারের স্বৈরাচারী শাসন দেশের গণতন্ত্রকে গলা টিপে ধরলেও অবশেষে শেখ হাসিনা সরকারের হাতে প্রাণ পেয়েছে। সারা বিশ্বে আজ আমরা মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছি।

বর্তমান সরকারের এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা আমাদের দরিদ্র দেশ থেকে স্বল্পোন্নত দেশে পরিণত হওয়া এবং ১৯৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ হওয়ার স্বপ্নে আমরা বিভোর।শিক্ষা, সংস্কৃতি ও মানবিক মূল্যবোধ সৃষ্টি এবং ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ গড়তে আমরা সক্ষম হয়েছি। মুজিব বর্ষে গৃহহীন কে ঘর নির্মাণ এবং ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যাহারের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ বহুদূর এগিয়েছে। সম্প্রতি করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশ প্রশংসার দাবী রাখে। সেইসাথে জলবায়ু মোকাবেলা ও সমুদ্রসীমা বৃদ্ধি বাংলাদেশের বিগত সময়ের অনেক বড় অর্জন। সড়ক ও যোগাযোগ ব্যাবস্থায় পদ্মাসেতু বিশ্বে আমাদের মর্যাদা বাড়িয়েছে। পর্যটন ও বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং মাথাপিছু আয় বেড়েছে।

বাংলাদেশ ৫০ বছরে উপনীত হয়েছে। আমরা পালন করছি স্বাধীনতা ও বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী। সারাদেশে আজ বিজয় উৎসব পালিত হচ্ছে। নতুন করে মানুষের মনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জেগে উঠেছে। নতুন প্রজন্মকে আমরা এই চেতনায় গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছি। বিশ্বকবির সোনার বাংলা, নজরুলের বাংলাদেশ আজ প্রিয় স্বাধীনতার লাল- সবুজ আবীরে সেজেছে। আমাদের এই মাখামাখিতে যুক্ত হোক সকল শ্রেণী,পেশা ও সকল ধর্মের নারী, পুরুষ, শিশু। আমরা সকলে আজ গেয়ে উঠি – “আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি।”

Share This Article
তারিকুল ফেরদৌস কবি ও শিক্ষাবিদ।