শেষ বসন্ত

বিজয় সিংহ
বিজয় সিংহ 346 Views 1

পঙক্তি

ঈশ্বর কবেই মৃত তবু তোমার কাছে
জ্যোৎস্নাই চেয়েছি, রাত্রিতে
এ কবিতার সামান্য পংক্তিতে তুমি
আলগোছে বসে ফলে কবিতা
আলোকময় হল, জলের ছলাৎ নিয়ে
যামিনী নৌকোরা প্রহর পেরোয়

বুদবুদের দেশে জানি ঈশ্বর থাকেনা তবু
আলপিনের প্রার্থনা ছিল, যার
মাথাতে চুরমার
সমস্ত চুরমার নিয়ে এ বিদেহী পংক্তিতে
অমাবস্যার কালো, তুমি
হেসে ওঠো কামিনীর ঢঙে, তোমার মুঠোয়
পতিত আঙুল থাকে অবশিষ্ট বিবাগীর, চুলে পুরুষের পোড়া চোখ

জ্যোৎস্নাহীন কবিতার শেষ পংক্তিতে
তোমার নেশা-উড়নি ছড়িয়ে গিয়েছে, দূরে
জলের অবোধ্য কোলাহল

পেরিয়ে গিয়েছে নিশিকাল

রক্তজালিকা

বেহাগ পংক্তিতে থির হয়ে আছে আর
এত এত মৃতজল.. এত এত বাতাসের শব..

অবিনশ্বর, তুমি তো জানো, ময়ূর ছেড়েছি;
শব্দ রেয়াত করেনি
তুমি জানো, কত নৌকো ভাসিয়েছি, নদী
বাষ্প হয়ে মিশে গেছে
প্রাকৃত সর্বনামের বিষকোশে

মৃত বুকে হাহাকার করেছে ইমেজ
পিঁপড়েরা অস্থির মুখে ডিম নিয়ে বর্ষাদেশে
বিষাক্ত নিঃসঙ্গ নিয়ে
আমি কী পূর্ণযতিতে ফিরে যাব?

কবিতার পূর্বাকাশ থেকে এ ব্রহ্মাণ্ডকে
রক্তজালিকা মনে হয়


শেষ বসন্ত

অতল পেখম তুমি ছড়িয়েছ
কেকাধ্বনি আলো আর অন্ধকারে

সাঁতার কেটেছে আঁধিরাতে

এভাবে বসন্ত আসে

এইভাবে বসন্তও এসেছিল অশব্দের চুপে
গাছেরা স্মৃতির স্তম্ভ হয়ে ক্ষয়ে ক্ষয়ে গেলে
হাজার চাঁদের আলো

দিয়ে গড়া ওষ্ঠ ভূমা-বাতাসের
নৌকো হয়ে ওঠে

মহাকাল বিমূঢ় দেখেছে
অসিদ্ধের মড়াকাটা জ্যোৎস্নায়

সিদ্ধাইয়ের এই আত্মদীপ
প্রথাসিদ্ধ বেদনায় ডোবে আর
অধর্মবশত ডুবে যায়

পিঁপড়ে

জ্বলন্ত ফোয়ারার পাশেই তুমি

জলতরঙ্গ বাজাও, ওগো

তোমার কি মায়া নেই, মেয়ে?

এতটা পুরনো শব টেনে টেনে
আমিই বা কদ্দুর নিয়ে যেতে পারি

কুদ্রমুখ ডেকেছে সিসায়
রতিসুখ টেনে নেয় মেঘ বিদ্যুৎসঙ্গমে
বিদ্যুতিন তুহুঁ মম দিব্যখাল কেটে গেছ

মথুরা নগরে
Share This Article
৮০ দশকের গুরুত্বপূর্ণ কবি বিজয় সিংহের জন্ম ১৯৫৮ সালে জামশেদপুরে। বসবাস করছেন কলকাতায়। শিক্ষা এমএ, পিএইচডি। পেশা অধ্যাপনা। কবিতা রচনা ছাড়াও কবিতা বিষয়ক গদ্য লেখেন। এ পর্যন্ত আটটি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। প্রথম গ্রন্থ ‘অযুত মায়াবী ধান্য', সাম্প্রতিক কাব্যগ্রন্থ ‘ছায়াছবির গান’। তাঁর মুদ্রিত কাব্যগ্রন্থগুলি হল : ‘অযুত মায়াবী ধান্য’, ‘প্রেমিক প্রণীত’, ‘নীল হারমোনিয়াম’, ‘প্রলয়ের পাঁচ মুহূর্ত’, ‘সন্ধের পরের কবিতা’, ‘কবীরের সঙ্গে চারফর্মা’, ‘অতটা মধুর নয় কেকা’। গদ্য গ্রন্থ : ‘সুভাষ মুখোপাধ্যায়: পদাতিক কবি’, ‘রক্তিম কবিতা’। ‘প্রলয়ের পাঁচ মুহূর্ত’ কাব্যগ্রন্থের জন্য পেয়েছেন বীরেন্দ্র পুরস্কার। এছাড়াও পেয়েছেন অমিতেশ মাইতি স্মৃতি পুরস্কারসহ আর অনেক সম্মাননা। সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের কবিতার ওপর গবেষণা করেছেন। ‘সুভাষ মুখোপাধ্যায়: পদাতিক কবি’, ‘রক্তিম কবিতা’ গবেষণা গ্রন্থটি বিপুল ভাবে সমাদৃত হয়েছে।